যৌন হয়রানির অভিযোগ: খান’স টিউটোরিয়ালের সিইও ইভান খানের অব্যাহতি


ইভান

নিউইয়র্কের বাংলাদেশি মালিকাধীন ঐতিহ্যবাহী কোচিং সেন্টার খান’স টিউটোরিয়ালের সিইও ইভান খানের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ করেছে প্রায় এক ডজনেরও বেশি স্কুল ও কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থী।

গত এক সপ্তাহ ধরে ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করা ওই কোচিং সেন্টারের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের আনা অভিযোগ বাংলাদেশি কমিউনিটিতে সাথে সাথে ভাইরাল হয়ে যায়। এতে প্রবাসী কমিউনিটিতে আলোচনা ও সমালোচনার ঝড় বইছে। বাংলাদেশি মালিকাধীন খান’স টিউটোরিয়াল দীর্ঘ অনেক বছর ধরে যে সুনামের সঙ্গে মানুষ গড়ার কাজ করে যাচ্ছে।

এমনকি খান’স টিউটোরিয়ালের সেবা নেওয়া সর্বাধিক সংখ্যক শিক্ষার্থী নিউইয়র্ক নগরীর বিশেষায়িত বিদ্যালয়গুলোতে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পেয়েছেন। সেই প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে কীভাবে যৌন হয়রানির অভিযোগ উঠতে পারে এনিয়েও বাংলাদেশি কমিউনিটিতে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে।

শুধু সিইও ইভান খান নয়, ওই প্রতিষ্ঠানের আরও কর্মীর বিরুদ্ধেও যৌন হয়রানির অভিযোগ উঠেছে। এ বিষয়ে খান'স টিউটোরিয়ালের সিইও ইভান খান অফিসিয়াল ইনস্টাগ্রামে (@drivankhan Statement) একটি স্টেটমেন্ট তুলে ধরেন। স্টেটমেন্টে খান টিউটোরিয়ালস এর প্রধান নির্বাহীর দায়িত্ব থেকে 'সাময়িক ভাবে' অব্যাহতি নেন ইভান খান।

তার বিরুদ্ধে আনীত 'যৌন নির্যাতনের' অভিযোগ অস্বীকার করে, একটি 'নিরপেক্ষ' তদন্ত টিমেরও ঘোষণা দেন তিনি। ইভান খানের অবর্তমানে খান'স টিউটোরিয়ালের এর প্রধান নির্বাহীর দায়িত্ব পালন করবেন তার স্ত্রী তাসনিম ইমাম খান।

এদিকে হঠাৎ করে আরেক প্রবাসী বাংলাদেশি চিকিৎসক ডাঃ ফেরদৌস খন্দকার ও ইভান খানের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ  উঠায় বাংলাদেশি কমিউনিটিওতে ক্ষোভ ও কিছুটা আতঙ্ক বিরাজ করছে। অনেকে প্রবাসীরা মনে করছেন কেউ যদি ইচ্ছা করে কারও সম্মান বা তার প্রতিষ্ঠানের ক্ষতি করতে চায় ব্যক্তিগত বা উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে তাহলে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া সময়ের দাবি।

ads