এক পঙ্গুর ত্রান না পাওয়ার খবর শুনে রাতের আঁধারে ত্রান নিয়ে ছুটে গেলেন পটিয়ার এসিল্যান্ড


পটিয়ার এসিল্যান্ড

করোনা ভাইরাসের আক্রমন থেকে বাঁচার জন্য সকল মানুষকে গৃহ বন্ধি হয়ে থাকতে হচ্ছে। কিন্তু ঘরে থাকলেও যে পেটের ক্ষুদা মিটছেনা যারা দিনে আনে দিনে খাই। পটিয়া উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ এনামুল হাছান, এমন সব কেটে খাওয়া গরীব দুঃখী মেহনতি মানুষদের খুঁজে খুঁজে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ত্রান পৌঁছে দিচ্ছেন।

সোমবার পটিয়ার আমজুর হাটে এক পঙ্গু ইউএনও কে দেখে কেঁদে কেঁদে বলল স্যার আমি খুব অসহায় আমার দুই মেয়ে আমি পঙ্গু অবস্থায় কাজ করে এদের কে খাওয়াতে পারছিনা। আমাকে কেও কোন ত্রান দেয়নি এখনো পর্যন্ত, আমাকে যদি আপনি কিছু সাহায্য করতেন।

পটিয়া উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ এনামুল হাছান আবেগ আপ্লুত হয়ে পরেন এই লোকের কথা শুনে। মঙ্গলবার রাত তখন রাত ৯টা, পৌঁছে যান তিনি ত্রান নিয়ে পঙ্গু ব্যাক্তিটির বাড়িতে।
ত্রান সামগ্রী দেওয়ার পর তিনি (ইউএনও) জানতে পারে যে, এই লোকটি কোন পঙ্গু ভাতা পান না। সঙ্গে সঙ্গে তিনি এই ব্যাক্তিটির পঙ্গু ভাতা নিশ্চিত করার জন্য চেয়ারম্যানকে আদেশ দেন ।

উল্লেখ্য যে, করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় পটিয়ার মানুষদের সচেতনা সৃষ্টি এবং কেও যাতে অনাহারে না থাকে তার জন্য এলাকায় এলাকায় গিয়ে খোঁজখবর নিচ্ছেন পটিয়ার এই এসিল্যান্ড।

ads