পুলিশ বলছে কিভাবে মিমাংসা হয়েছে তা জানি না

লড়ির এসকেলেটরে পা: বিকালে কিশোর নিহত, সন্ধ্যায় মিমাংসা


আওয়াজবিডি

নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলায় রাস্তার পাশে রাখা শাপলা ব্রিকস নামের একটি মাটি টানা লড়ির এসকেলেটরে পা দিয়ে গাড়ির হেল্পার অপু মিয়া (১৭) নামে এক শ্রমিক নিহত হয়েছে।

নিহত শ্রমিক উপজেলার কান্দিউড়া ইউনিয়নের গোগ গ্রামের কাশেম মিয়ার ছেলে বলে হাসপাতালের রেজিস্ট্রার সূত্রে জানা গেছে।

মঙ্গলবার বিকালে গুগবাজার এলাকায় এই দুর্ঘটনার পর সন্ধ্যায় মিমাংসা শেষে ময়নাতদন্ত ছাড়াই স্বজনরা লাশ নিয়ে গেছে বাড়িতে।

কিন্তু বিকালে কেন্দুয়া থানার ওসি মো. রাশেদুজ্জামানের সাথে কথা হলে ঘটনাটি সত্য নিশ্চিত করেছে।

এ ব্যাপারে পুনরায় সন্ধ্যয় কেন্দুয়া থানার ওসি মো. রাশেদুজ্জামানের সাথে কথা বললে তিনি সাংবাদিকদের জানান,

ঘটনাটি কিভাবে মিমাংসা হয়েছে তিনি জানেন না। নিহত এবং চালক চাচাতো ভাই বলেও জানান তিনি। তিনি আরো বলেন এ ঘটনায় পুলিশের পক্ষ থেকে মামলা করার কথা বলা হয়েছিল।

উল্লেখ্যঃ স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার (২৪মার্চ)বিকালে কেন্দুয়া-মদন সড়কে গোগ গ্রামের সামনে শাপলা ব্রিকস ফিল্ডের মাটি টানা লড়ি গাড়ির চালক মৃত তারা মিয়ার ছেলে তাজ্জত মিয়া রাস্তার পাশে গাড়িটি রেখে চলে যায়।

এসময় ওই লড়ির হেল্পার অপু মিয়া গাড়ি চালকের আসনে বসলে গাড়িটি চলেতে শুরু করে। পরে রাস্তার পাশে গাছের সঙ্গে ধাক্কা লেগে আহত হয়।

স্থানীয়া তাকে উদ্ধার করে উপজেলা হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

উল্লেখ্য এর আগেও একই শাপলা ব্রিকসের এমন দুর্ঘটনা ঘটেছে মিমাংসাও হয়েছে।

কবির/রেদওয়ানুল/আওয়াজবিডি

ads