জামালপুরে পানিবন্দি ৭০ হাজার মানুষ


পানিবন্দি

উজানের ঢল ও ভারী বর্ষণে যমুনা-ব্রহ্মপুত্র নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় জামালপুরে সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির অবনতি ঘটেছে। রোববার (২৮ জুন) রাত ১০টা পর্যন্ত জেলার চার উপজেলার ৫৩ গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। পানিবন্দি হয়ে পড়েছে ৭০ হাজার মানুষ। জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা নায়েব আলী এ তথ্য জানিয়েছেন।

জামালপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) পানি পরিমাপক (গেজ রিডার) আব্দুল মান্নান জানান, বাহাদুরাবাদ ঘাট পয়েন্টে রবিবার রাত ১০টা পর্যন্ত যমুনা নদীর পানি বেড়ে বিপদসীমার ৬৮ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত চারদিন ধরে বন্যার পানি হু হু করে বাড়ছে। দ্রুতগতিতে বন্যার পানি বৃদ্ধির কারণে নিম্নাঞ্চলের ফসলি জমিতে, বাড়িঘর, রাস্তাঘাট ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পানি প্রবেশ করেছে এবং প্লাবিত হচ্ছে নতুন নতুন এলাকা।

চিনাডুলি ইউপির চেয়ারম্যান আব্দুস ছালাম জানান, এ বছরের আগাম বন্যায় নিম্নাঞ্চলের রাস্তাঘাট বন্ধ এবং যমুনা চরাঞ্চল বন্যা কবলিত এলাকায় বিশুদ্ধ পানি ও গো-খাদ্যের সংকট দেখা দিয়েছে। নিম্নাঞ্চল এলাকায় বেশিরভাগ এলাকা পানির নিচে তলিয়ে যাওয়ায় ৪ হাজার পরিবারের প্রায় ৮ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।

জেলা ত্রাণ ও পূনর্বাসন কর্মকর্তা মো. নায়েব আলী জানান, ইতোমধ্যে ইসলামপুর ও দেওয়ানগঞ্জের বন্যার্ত এলাকায় ২০ মেট্রিক টন জিআর চাল বিতরণ করা হয়েছে।

এছাড়া ত্রাণসামগ্রী হিসাবে ৩৫০ মেট্রিক টন জিআর চাল, ৭ লাখ নগদ টাকা ও ২ হাজার শুকনো খাবারের প্যাকেট চেয়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরে আবেদন করা হয়েছে।

রেদওয়ানুল/আওয়াজবিডি

ads