তামাকজাত দ্রব্যে কর কাঠামো পরিবর্তনে এমপিদের অনুরোধ


তামাকজাত

তামাকজাত দ্রব্যের বিদ্যমান কর কাঠামো পরিবর্তনের অনুরোধ জানিয়েছেন জাতীয় সংসদ সদস্যরা। তারা এ জন্য সংসদে প্রস্তাবিত বাজেট পুনঃবিবেচনা করে যথাযথ সংশোধন ও করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান জানিয়েছেন।

অর্থমন্ত্রী বরাবর লেখা বাজেট প্রতিক্রিয়ায় সংসদ সদস্যরা এ আহ্বান জানিয়েছেন বলে আজ সোমবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে।

সংসদ সদস্যদের ওই প্রতিক্রিয়ায় স্বাক্ষর করেছেন গোপালগঞ্জ-১ আসনের মুহাম্মদ ফারুক খান, রাজশাহী-২ আসনের ফজলে হোসেন বাদশা, সিরাজগঞ্জ-২ আসনের প্রফেসর ডা. মো. হাবিবে মিল্লাত, রাজশাহী-৩ আসনের মো. আয়েন উদ্দিন এবং সংরক্ষিত নারী আসনে ওয়াসিকা আয়শা খান, অপরাজিতা হক ও মাসুদা এম রশীদ চৌধূরী। বাজেট প্রতিক্রিয়া পত্রে তারা জনস্বাস্থ্য রক্ষায় প্রস্তাবনা তুলে ধরে সিগারেটের মূল্যস্তর ৪টি থেকে দুটি নির্ধারণ, একীভূত নতুন নিম্নস্তরের ১০ শলাকা সিগারটের খুচরা মূল্য ন্যূনতম ৬৫ টাকা নির্ধারণ করে ৫০ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক এবং ১০ টাকা সুনির্দিষ্ট সম্পূরক শুল্ক আরোপ; একীভূত নতুন প্রিমিয়াম স্তরের ১০ শলাকা সিগারেটের খুচরা মূল্য নূন্যতম ১২৫ টাকা নির্ধারণ করে ৫০ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক এবং ১৯ টাকা সুনির্দিষ্ট সম্পূরক শুল্ক আরোপ করার অনুরোধ জানান।

ওই পত্রে ফিল্টারবিহীন ২৫ শলাকা বিড়ির খুচরা মূল্য ৪০ টাকা নির্ধারণ করে ৫০ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক ও ৬ দশমিক ৮৫ টাকা সুনির্দিষ্ট সম্পূরক শুল্ক আরোপ এবং ফিল্টারযুক্ত ২০ শলাকা বিড়ির খুচরা মূল্য ৩২ টাকা নির্ধারণ করে ৫০ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক এবং ৫ দশমিক ৪৮ টাকা সুনির্দিষ্ট সম্পূরক শুল্ক আরোপের প্রস্তাব করা হয়েছে।

এ ছাড়াও সকল তামাকপণ্যের খুচরা মূল্যের ওপর ৩ শতাংশ কোভিড-১৯ সারচার্জ আরোপ করা ও ই-সিগারেটের ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করার কথা বলা হয়েছে। সংসদ সদস্যগণ বলেছেন, সার্বিকভাবে প্রস্তাবিত তামাক কর ও মূল্য বৃদ্ধির পদক্ষেপ অতিরিক্ত রাজস্ব আহরণ, অকাল মৃত্যুরোধ এবং করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি হ্রাসে কোনো ভূমিকা রাখবে না, যা অত্যন্ত হতাশাজনক।

প্রস্তাবিত বাজেটে তামাকখাত থেকে সরকারের রাজস্ব আয় খুব বেশি বাড়বে না; বরং শুল্ক না বাড়িয়ে দাম বাড়ানোর ফলে তামাক কোম্পানিগুলো বিনা ব্যয়ে আরো বেশি মুনাফা করার সুযোগ পাবে। অন্যদিকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় প্রস্তাবিত বাজেট বাস্তবায়ন না করলে সরকার অতিরিক্ত ১১ হাজার কোটি টাকা রাজস্ব আয়ের সুযোগ হারাবে।

রেদওয়ানুল/আওয়াজবিডি

ads