মিশিগান ডেমোক্রেটিক প্রাইমারিতে বাংলাদেশি প্রার্থীদের সমাবেশে ঐক্যের আহ্বান


মিশগান নির্বাচন

মিশিগান রাজ্যসভায় ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রাইমারি নির্বাচনে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত দুই আমেরিকান মাঠে নেমেছেন। আগস্টের ৪ তারিখ এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ওয়েইন কাউন্টি ডিস্ট্রিক্ট-৩ থেকে কমিশনার পদে মোহাম্মদ কামরুল ইসলাম এবং অপরজন হলেন মিশিগানের ডিস্ট্রিক্ট-৪ থেকে স্টেট রিপ্রেজেনটেটিভ হয়ে পদে সাহাব আহমেদ সুমীন। এ দু’জনের সমর্থনে কমিউনিটিতে ঐক্য পরিলক্ষিত হচ্ছে এবং তার প্রকাশ ঘটেছে শনিবার অনুষ্ঠিত এক সমাবেশের মধ্য দিয়ে।

গেইটস অব কলম্বাসে বাংলাদেশিদের এই সমাবেশে বক্তারা বলেন, আমাদের নতুন প্রজন্মকে আমেরিকার মূলধারার রাজনীতিতে সম্পৃক্ত করতে হলে এখনই সময় সবাইকে একযোগে কাজ করার।

সম্মলিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে বিজয় আনা সম্ভব। যদি কারো ভোট কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিতে সমস্যা হয় তাহলে আগাম ভোটেরও ব্যবস্থা রয়েছে। ডাকযোগে তারা ভোট দিতে পারবেন।

মিশিগানের প্রতিনিধি বিস্তারিত তথ্য জানিয়ে আরও বলেন, সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে আসনবিন্যাসের এ সভায় বক্তব্য রাখেন হ্যামট্রামক সিটির কাউন্সিলম্যান নাইম লিয়ন চৌধুরী, ম্যাকম্ব কাউন্টি প্রসিকিউটর প্রার্থী সায়মা খলিল, মুহিত মাহমুদ, বকুল তালুকদার, কামাল রহমান, ড. নাজমুল হাসান শাহীন, সাহিদুর রহমান চৌধুরী জাবেদ, খাজা সাহাব আহমেদ, খলকুর রহমান, আব্দুর শাকুর খান মাখন, শামীম আহমদ, মাসুদ খান প্রমুখ।

আমেরিকার পাবলিক অফিসে প্রথম বাংলাদেশি সিটি কাউন্সিলম্যান সাহাব আহমেদ সুমিন। তিনি মিশিগানের হ্যামট্রামক সিটি’র ৩ টার্ম কাউন্সিলম্যানের দায়িত্ব পালন করেছেন। ১৯৯৮ সালে কাউন্সিলম্যান থাকা অবস্থায় এই সিটি’র মেয়র গ্যারি জিকের ডেপুটি মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি নির্বাচিত হয়ে হ্যামট্রামক চার্টার রিভিশন কমিশন হিসেবে ২০০৪ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন।

এমনকি মিশিগানের মুসলিম অধ্যুষিত শহর হ্যামট্রামক সিটিতে মুসলমানদের পবিত্র মসজিদের আযান মাইকে প্রচারের জন্য অগ্রনী ভুমিকা পালন করেন। ফলে মিশিগানে বিভিন্ন মসজিদে একই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। তিনি এখানকার বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরিকল্পনা কমিটি, হ্যাট্রামক চেম্বার অব কমার্স বোর্ড এর পরিচালক হিসেবে বাংলাদেশিসহ ভিন্ন কমিউনিটির মানুষদের সেবা দিয়ে যাচ্ছেন।

অপরদিকে ওয়েইন কাউন্টি ডিস্ট্রিক্ট-৩ থেকে কমিশনার হিসেবে প্রার্থীতা ঘোষণা করেছেন হ্যামট্রামক সিটির বর্তমান কাউন্সিলম্যান মোহাম্মদ কামরুল হাসান। তিনি হ্যামট্রামক সিটি থেকে একাধারে তিনবারের মতো নির্বাচিত কাউন্সিলম্যান। বিগত সময়েও সিটি কাউন্সিলম্যান হিসেবে জনগণকে সেবা দিয়ে গেছেন এবং সম্প্রতি ঘটে যাওয়া করোনা মহামারীতে বাংলাদেশিসহ ভিন্ন কমিউনিটির মানুষকে সাহায্য সহযোগিতা করছেন। স্মরণ করা যেতে পারে, মার্কিন রাজনীতিতে বাংলাদেশি আমেরিকানদের উত্থানের পথিকৃত ছিলেন এই মিশিগান থেকে নির্বাচিত কংগ্রেসম্যান হেনসেন ডি ক্লার্ক।ডেমোক্রেটিক পার্টি থেকে ২০১০ সালের নির্বাচনে জয়ী হয়ে মাত্র এক টার্ম দায়িত্ব পালন করেন। তার পুননির্বাচনের স্বপ্ন ধুলিসাত হয় নির্বাচনী এলাকা পুনর্গঠনের জন্যে। তার প্রতি অনুগত অথবা তার কাজে সন্তুষ্ট ভোটারের সিংহভাগ অন্য এলাকার সাথে যুক্ত হয়েছেন।

অন্য কথায় বলা যায়, শ্বেতাঙ্গ এবং স্প্যানিশদের ষড়যন্ত্রে টিকতে পারেননি কংগ্রেসে প্রথম অর্ধ মুসলিম এবং তৃতীয় দক্ষিণ এশিয়ান হিসেবে। যদিও ক্লার্ক মার্কিন রাজনীতিতে হঠাৎ করে আসেননি।

তিনি মিশিগান স্টেট রিপ্রেজেনটেটিভ এবং স্টেট সিনেটর হিসেবে নির্বাচিত হবার পথ ধরেই জাতীয় রাজনীতিতে এসেছিলেন। এরপর আর কোন বাংলাদেশি অথবা বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত জাতীয় পর্যায়ে উঠে আসতে পারেননি।

ads