লড়াইয়ের বার্তা মোদির


মোদি

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে দেশজুড়ে একযোগে কাঁসর থালা বাজানো, মোমবাতি জ্বালানোসহ বিভিন্ন কর্মসূচিকে বিতর্ক ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির পিছু নিয়েছে। দেশটিতে লাফিয়ে লাফিয়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্যাও বেড়ে চলেছে।

এবার মোদি বললেন, ‘সামনে আরও লম্বা লড়াই। তার জন্য দেশবাসীকে প্রস্তুত থাকতে হবে। জয় না আসা পর্যন্ত করোনার বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যেতে হবে। সোমবার ভারতের ক্ষমতাসীন বিজেপির প্রতিষ্ঠা দিবসে এমনই বার্তা দিলেন প্রধানমন্ত্রী মোদি।

দলের ৪০তম প্রতিষ্ঠা দিবসে বিজেপি কর্মীদের উদ্দেশে মোদি বলেন, ‘এ বছর এমন একটা সময়ে দলের প্রতিষ্ঠা দিবস পড়েছে, যখন শুধুমাত্র আমাদের দেশই নয়, গোটা বিশ্ব কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে। মানবতার এই সঙ্কটের সময় একনিষ্ঠ ভাবে দেশের সেবা করে যেতে হবে।’

মোদি বলেন, ‘লকডাউনে পরিণত বিচারবুদ্ধির পরিচয় দিয়েছেন দেশবাসী। সামনে লম্বা লড়াই। বিজেপির সব কর্মীর সামনে রাষ্ট্রসেবা-মানবসেবার দায়িত্ব। গরিব মানুষের কাছে পর্যাপ্ত ত্রাণ পৌঁছচ্ছে কি না, খেয়াল রাখতে হবে। ত্রাণ পৌঁছে দিতে যাওয়ার সময় মাস্ক পরে নেবেন। কেনা মাস্ক না থাকলে কাপড়ে মুখ ঢেকে নেবেন।’

এই পরিস্থিতিতেও যারা নিজেদের জীবন বাজি রেখে কাজ করে চলেছেন, সেই সমস্ত ডাক্তার, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মী এবং জরুরি পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত মানুষকে ধন্যবাদপত্র লিখে ধন্যবাদ জানানোর পরামর্শ দেন মোদি। পাশাপাশি, কেন্দ্রীয় সরকারের আরোগ্য অ্যাপ ডাউনলোড করে, পরিচিত আরও ৪০ জনকে ওই অ্যাপ ডাউনলোড করানোর কথা বলেন তিনি। পিএমকেয়ারস তহবিলে অনুদান বাড়াতে হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

করোনার প্রকোপ ঠেকাতে গত ২৪ মার্চ থেকে দেশ জুড়ে ২১ দিন ব্যাপী লকডাউন ঘোষণা করেছে ভারত সরকার। সংক্রমণ ঠেকাতে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া সাধারণ মানুষের বাইরে বেরনো নিষিদ্ধ করা হয়েছে। সম্প্রতি ভারতের এই পদক্ষেপের প্রশংসা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু)। এ দিন সেকথাও তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী মোদি।

এসএম/আওয়াজবিডি

ads