ভারতের মাটিতে পাকিস্তান নিয়ে ট্রাম্পের নরম সুর, মুখে বলিউডের প্রশংসা


ট্রাম্প-মেলানিয়া

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, সন্ত্রাসবাদ উত্খাত করতে ভারত এবং আমেরিকা বদ্ধপরিকর। তার জন্য দুই দেশ এক সঙ্গে কাজও করছে।

সোমবার দুপুরে গুজরাটের মোতেরা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ‘নমস্তে ট্রাম্প’ অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে এসব কথা বলেন তিনি।

তবে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম বলছে, সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায় কড়া বার্তা দিলেও ভারতের মাটিতে দাঁড়িয়ে পাকিস্তান সম্পর্কে ‘নরম’ সুরে কথা বলতে দেখা গেছে ট্রাম্পকে। হোয়াইট হাউজের দায়িত্ব পেয়েই সন্ত্রাসবাদ ইস্যু নিয়ে পাকিস্তানের সঙ্গে সদর্থক আলোচনা চালিয়েছে ট্রাম্প। পাক সীমান্তে জঙ্গি সংগঠনগুলির কার্যকলাপ বন্ধ করতে ধারাবাহিকভাবে আলোচনা চালানো হয়। সন্ত্রাস মোকাবিলায় প্রাথমিকভাবে পাকিস্তান সক্ষম হয়েছে বলেও জানান তিনি।

সর্বোপরি পাকিস্তানের সঙ্গে হোয়াইট হাউজের ভাল সম্পর্ক বলেও উল্লেখ করেন ট্রাম্প। দক্ষিণ-এশিয়া দেশগুলিতে স্থায়িত্ব, শান্তি এবং একতা ফিরে আসার বার্তা দেন তিনি।

ট্রাম্পের এমন বক্তব্যে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলোর ভাষ্য, ভারত শাসিত কাশ্মীরের পুলওয়ামায় জঙ্গী হামলায় ৪০ জনেরও বেশী কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা রক্ষী নিহতের পর ভারত-পাকিস্তান সম্পর্ক কার্যত তলানিতে ঠেকে।

নয়াদিল্লির তরফে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়, সন্ত্রাসবাদ দমন না হওয়া পর্যন্ত কোনও আলোচনা নয় ইসলামাবাদের সঙ্গে। আন্তর্জাতিক স্তরেও পাকিস্তানের উপর কূটনৈতিক চাপ সৃষ্টি করে ভারত। সামরিক অনুদানে নিষেধাজ্ঞা জারি করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রও।

তবে, পরবর্তীকালে বরফ গলাতে আমেরিকায় ছুটে গিয়েছেন ইমরান খান। নিজেদের ভাবমূর্তি ফেরাতে মরিয়া ছিলেন ইমরান। তিনি যে কিছুটা সফল হয়েছেন এ দিনে ট্রাম্পের বক্তৃতায় তার প্রমাণ মিলল।

ভারতে আসার আগেই বাহুবলী ছবির একটি গানের সাহায্য নিয়েছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। প্রশংসা করেছিলেন শুভ মঙ্গল জাদা সাবধান ছবির। এবার ভারতে পা রেখে ডিডিএলজে অর্থাৎ দিলওয়ালে দুলহানিয়া লে জায়েঙ্গে ছবির প্রশংসা করলেন ট্রাম্প।

সোমবার সকাল ১১টা ৪০ মিনিটে সপরিবারে ভারতে পৌঁছান ট্রাম্প। বিমানবন্দরে ট্রাম্প দম্পতিকে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানান স্বয়ং মোদি। সেখান থেকে মহাত্মা গান্ধীর স্মৃতি বিজরিত সবরমতী আশ্রম পরিদর্শন করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। সেখানে ট্রাম্প ও তার স্ত্রীকে মেলানিয়াকে চরকা কাটা শেখান মোদি। এরপর আশ্রম থেকে মোতেরা স্টেডিয়াম যান ট্রাম্প ও মোদি। সেখানে প্রথমে মোদি ও পরে ট্রাম্প ভাষণ দেন। অন্যান্য প্রসঙ্গের সঙ্গে নিজের ভাষণে বলিউডের কথা তুলে ধরে ট্রাম্প বলেন, প্রতি বছর বলিউড প্রায় ২০০০ সিনেমা তৈরি করে। যা কার্যত গর্বের বিষয়। বলিউড মানেই নাচ, গান, রোম্যান্স, নাটক, যা দর্শকদের খুব বেশিই আনন্দ দেয়।

এই কথা বলতে গিয়ে তিনি ‘দিলওয়ালে দুলহানিয়া লে জায়েঙ্গে’ এবং শোলে সিনেমার কথা উল্লেখ করেন। শাহরুখ-কাজল অভিনীত দিলওয়ালে দুলহানিয়া লে জায়েঙ্গে ছবিটি বলিউডে ইতিহাত তৈরি করেছে। অন্যদিকে শোলে একটি কালজয়ী ছবি। এই দু’টি ছবির কথা নিজের ভাষণে উল্লেখ করলেন ট্রাম্প, যা নিঃসন্দেহে বলিউড কলাকুশলীদের উৎসাহ জোগাবে।

ads