কাশ্মীরে ভারতীয় বাহিনীর অভিযান, হিজবুল কমান্ডারসহ ৩ জন নিহত


হিজবুল কমান্ডার

ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে কাশ্মীরের স্বাধীনতাকামী সংগঠন হিজবুল মুজাহিদিনের একজন কমান্ডারসহ তিন জন নিহত হয়েছেন। সোমবার কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

জম্মু- কাশ্মীরের স্বাধীনতার দাবিতে সশস্ত্র বিদ্রোহরত সংগঠনগুলোর মধ্যে হিজবুল মুজাহিদিন সবচেয়ে সক্রিয়। ১৯৮৯ সালে প্রতিষ্ঠিত সংগঠনটিকে ভারতের পাশাপাশি ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও যুক্তরাষ্ট্রও সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে বিবেচনা করে থাকে। আদর্শগতভাবে সংগঠনটি কাশ্মিরকে পাকিস্তানের অঙ্গীভূত করার পক্ষে। ২০১৬ সালে কাশ্মীরের বিদ্রোহের অন্যতম পরিচিত মুখ বুরহান ওয়ানি নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে নিহত হওয়ার আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলোর নজরে আসে সংগঠনটি। বুরহান ওয়ানি-র দায়িত্বে আসা ৩০ বছরের হিজবুল কমান্ডার রিয়াজ নাইকু-কেও হত্যা করে ভারতীয় বাহিনী। নিহতের আগে তার মাথার দাম ১২ লাখ রুপি ঘোষণা করে দিল্লি।

এনডিটিভি-র খবরে বলা হয়েছে, সোমবার সকালে জম্মু-কাশ্মিরের অনন্তনাগ অঞ্চলের দোদা জেলায় বিদ্রোহীদের মুখোমুখি হয় সেনাসদস্যরা। এ সময় গুলি চালিয়ে হিজবুল মুজাহিদিন কমান্ডার মাসুদ আহমেদ ভাটসহ তিনজনকে হত্যা করে ভারতীয় জওয়ানরা।

পুলিশ জানিয়েছে, ওই হিজবুল নেতা ও তার সহযোগীদের হত্যার ফলে দোদা জেলা এখন জঙ্গিমুক্ত। সোমবার ভোর থেকেই ভারতীয় সেনাবাহিনী, জম্মু-কাশ্মীর পুলিশ এবং সিআরপিএফ একসঙ্গে মিলে স্বাধীনতাকামীদের বিরুদ্ধে এই অভিযান শুরু করে।

সেনাবাহিনী জানিয়েছে, তিন জনকে হত্যার পর ঘটনাস্থল থেকে একটি একে ৪৭ রাইফেল এবং দুইটি পিস্তল উদ্ধার করা হয়েছে।

জম্মু-কাশ্মীর পুলিশ জানিয়েছে, ১৯ আরআর ইউনিট, সিআরপিএফ ও অনন্তনাগ পুলিশের সহায়তায় খুল্ল চৌহর অনন্তনাগে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় হিজবুল মুজাহিদিন কমান্ডার মাসুদকে মেরে ফেলা হয়। এছাড়া লস্কর-ই-তৈয়বার দুই সদস্যকেও হত্যা করা হয়।

জম্মু- কাশ্মীর পুলিশ প্রধান দিলবাগ সিং জানান, নিহত হিজবুল কমান্ডারের বিরুদ্ধে আগে থেকেই পুলিশের কাছে মামলা ছিল। এরপর থেকে পলাতক ছিল সে। পরে হিজবুল মুজাহিদিনে যোগ দিয়ে কাশ্মীরে জঙ্গি কার্যকলাপের সঙ্গে জড়িয়ে পড়ে সে।

শনিবারই জম্মু-কাশ্মীর পুলিশ দাবি করে, দক্ষিণ কাশ্মিরের ওই এলাকায় ২৯ বিদেশি জঙ্গি সক্রিয় রয়েছে। ভারতীয় পুলিশের দাবি, পুলওয়ামা জেলার ত্রাল এলাকা থেকে হিজবুল মুজাহিদিনকে নিশ্চিহ্ন করে নিরাপত্তা বাহিনী বিশাল সাফল্য অর্জন করেছে। এর আগে গত সপ্তাহে জম্মু-কাশ্মীরের পুলিশ প্রধান দিলবাগ সিং জানান, ২০২০ সালে জম্মু-কাশ্মীরে এখন পর্যন্ত শতাধিক বিদ্রোহীকে হত্যা করা হয়েছে।

ads