নিউইয়র্কে করোনায় প্রাণ গেল বাংলাদেশি শিক্ষার্থীর

তানিমা
ছবি: সংগৃহীত

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন তামিনা ইসলাম খান নামের এক বাংলাদেশি শিক্ষার্থী। তাঁর বয়স ৩০ বছর।

গতকাল রাতে ৮টা ২০ মিনিটে নিউইয়র্কের কুইন্সের স্থানীয় একটি হাসপাতালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

তামিনা ইসলাম খান নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটিতে ২০১৮ সালে ইলেকট্রনিক্স এন্ড টেলি কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং-এ ব্যাচেলর ডিগ্রী শেষ করেন।

তামিনা ব্যাচেলর ডিগ্রী শেষ করে ২০১৮ সালের ১৯ ডিসেম্বর বাবা-মায়ের কাছে নিউইয়র্ক চলে আসেন। বাবা তাজুল ইসলাম খান ও মা নাসিমা আখতারের একমাত্র সন্তান ছিলেন তামিনা। তাঁরা জ্যামাইকাতে বসবাস করেন। তাঁদের দেশের বাড়ি জামালপুর জেলার ইসলামপুর সদরে গ্রামে।

যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত মোট ৬৭ জন বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। দেশটির নিউইয়র্কেই ভাইরাসে সবচেয়ে বেশি বাংলাদেশি মারা গেছেন।

শুধু মৃত্যু নয় আক্রান্তের দিক দিয়েও যুক্তরাষ্ট্রে নিউইয়র্কের অবস্থান সবার উপরে। কোভিড-১৯ রোগী হিসেবে শনাক্ত মানুষের সংখ্যা এখন ১ লাখ ২২ হাজার ৩১ জন। এরমধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৪ হাজার ১৫৯ জনের।

করোনায় যুক্তরাষ্ট্রে সর্বশেষ ৩ লাখ ৩৩ হাজার ১৭ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এরমধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৯ হাজার ৫২৮ জনের।


শাহ আহমদ
শাহ আহমদ
https://awaazbd.net/author/awaaz-usa

শাহ আহমদ বাংলাদেশের সিলেট বিভাগের মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়ায় জন্মগ্রহন করেন। শিক্ষা জীবনের শুরু ঢাকার সানরাইজ প্রি ক্যাডেট এন্ড কলেজে। তারপর ২০০৪ সালে কুলাউড়ার জালালাবাদ হাইস্কুল থেকে এসএসসি, ২০০৬ সালে মদন মোহন কলেজ থেকে এইচএসসি পাশ করেন। ২০০৭ সালে সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে ইংরেজি অনার্সে ভর্তি হন।এরপর ইনফরমেশন টেকনোলজিতে পড়ালেখার জন্য লন্ডনে পাড়ি জমান এবং ক্রাউন ইন্টারন্যাশনাল কলেজে ব্যাচেলর শেষ করেন। বর্তমানে সপরিবারের যুক্তরাস্ট্রে বসবাসরত শাহ আহমদ, ছাত্রজীবন থেকেই সাহিত্য ও সৃজনশীল সবধরনের কাজের সাথে জড়িত ছিলেন। ২০১৬ সাল থেকে আওয়াজবিডি ও সাপ্তাহিক আওয়াজবিডির প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশের দায়িত্ব পালন করছেন।শাহ আহমদ বাংলাদেশ ডন-এর প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক।

mujib_100
ads
আমাদের ফেসবুক পেজ
সংবাদ আর্কাইভ